পোস্টটি পড়া হয়েছে 20,602 বার

ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য জেলার মুসলিমস ডে অ্যাপের ইউজারদের দৃষ্টি আকর্ষণ

মুসলিমস ডে অ্যাপে রমজান মাসে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী সাহরি ও ইফতারের সময় দেখানো হয়ে থাকে। বিগত বছরগুলোতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সময়সূচী অনুযায়ী আমরা সাহরি-ইফতারের সময় দেখাতে পেরেছি। কিন্তু ২০২২ সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় ভাবে ঢাকা জেলার সাথে অন্যান্য জেলার সাহরি-ইফতারের পার্থক্যের চার্ট প্রকাশ করে নি। তাই আমরা ২০২১ সালের সময়ের পার্থক্যের চার্ট ব্যবহার করছি। ফলে বিভিন্ন জেলার স্থানীয় ক্যালেন্ডারের সাথে আমাদের অ্যাপের সময়ে ২-১ মিনিট পার্থক্য দেখা যাচ্ছে। এর বিস্তারিত কারণ ও আমাদের অবস্থান পরিষ্কার করার জন্যেই আজকের এই ব্লগপোস্ট।

বিগত ৪-৫ বছর অন্যান্য জেলার সময় নিরুপনের পদ্ধতি

প্রতি বছর ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে কেন্দ্রীয় ভাবে ঢাকা জেলার সাহরি ও ইফতারের সময় সম্বলিত একটি ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হয়। সেখানে উল্লেখ থাকে ঢাকার সময়ের সাথে কত মিনিট যোগ বা বিয়োগ করলে অন্যান্য জেলার সাহরি-ইফতারের সময় পাওয়া যাবে।

উদাহরন স্বরূপঃ ২০২১ সালে সিলেট জেলার ক্ষেত্রে বলা হয়েছিল ঢাকার সময়ের থেকে সাহরিতে ৭ মিনিট ও ইফতারে ৪ মিনিট বিয়োগ করলে সিলেটের সাহরি ও ইফতারের সময় পাওয়া যাবে।

এজন্য আমরা আমাদের অ্যাপে ঢাকা জেলার সময় এবং অন্যান্য জেলার সাহরি-ইফতারের যোগ-বিয়োগের সময়টা সেভ রাখতাম। এরপর জেলা সিলেক্ট করা হলে ঢাকার সময়ের সাথে ঐ জেলার সময়টি যোগ-বিয়োগ করে জেলা ভিত্তিক সময় বের করতাম। ২০১৫ সালে মুসলিমস ডে’র যাত্রার শুরু থেকে এই পদ্ধতি অ্যাপে অনুসরণ করা হত। যা ছিল সকলের নিকট গ্রহনযোগ্য। কিন্তু ২০২২ সালে এর ব্যতিক্রম হয়েছে।

২০২২ সালের রমজান মাসে ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য জেলার সময় নিরুপণে জটিলতা

২০২২ সালের রমজান মাসে ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে যথারীতি ঢাকা জেলার ক্যালেন্ডার প্রকাশ করা হয়েছে। কিন্তু ব্যতিক্রম হচ্ছেঃ অন্যান্য জেলার জন্য কত মিনিট যোগ বা বিয়োগ করতে হবে সে ব্যাপারে, কেন্দ্রীয় কোনো নির্দেশনা দেয়া হয় নি। 

ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে বলা হয়েছে যে, জেলা ভিত্তিক ক্যালেন্ডার ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জেলা কার্যালয় থেকে প্রকাশ করা হবে। ইফা’র বেশ কয়েকটি জেলা অফিসের ওয়েবসাইট ভিজিট করে আমরা সেরকম ক্যালেন্ডার খুঁজে পেতে ব্যর্থ হয়েছি।

ফলে ২০২২ সালের রমজান মাসে কোন জেলার জন্য কত মিনিট যোগ বিয়োগ করে জেলা কার্যালয়গুলো ক্যালেন্ডার প্রকাশ করেছে সেটা আমরা জানতে পারি নি। হয়ত ওয়েবসাইটে প্রকাশ না করে অন্যান্য মাধ্যমে তারা ক্যালেন্ডার প্রকাশ করেছে। কিন্তু সেগুলো সংগ্রহ করে অ্যাপে ইনপুট দেয়া এই মুহূর্তে আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।

এজন্য আমরা ২০২১ সালের জেলাগুলোর যোগ বিয়োগের সময়গুলোই এখনো ব্যবহার করছি। ফলে এ বছরের জেলা পর্যায়ে প্রণিত ক্যালেন্ডারগুলোর সাথে অ্যাপের সময়ের ২-১ মিনিট তারতম্য দেখা যেতে পারে। এজন্য সকল ইউজারদেরকে সতর্কতার সাথে সাহরি ও ইফতারের সময়গুলো অনুসরণের অনুরোধ করছি। পাশাপাশি আমরা টেকনিক্যাল টিম, আলেম-ওলামা ও মুফতি সাহেবদের সাথে এ বিষয়ে আলোচনা করছি। চেষ্টা করছি দ্রুততম সময়ের মধ্যে এর একটা শরঈ সমাধানে পৌঁছানোর।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী সাহরি-ইফতার করা কি বাধ্যতামূলক?

আমরা জানি সাহরির সময় নির্ভর করে সুবহে সাদিকের সময়ের উপর। আর ইফতারের সময় নির্ভর করে সূর্যাস্তের উপর। অর্থাৎ আমরা যদি সুবহে সাদিক বা সূর্যাস্তের সঠিক সময় জানতে পারি তাহলে সে অনুযায়ী সাহরি ও ইফতার পালন করতে পারব। এটা কোনো একটা প্রতিষ্ঠান বা অ্যাপের সময়ই একমাত্র সঠিক বাকি সব ভুল – বিষয়টা এরকম নয়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন আমাদের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। সে হিসাবে আমরা বেশির ভাগ মানুষ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রকাশিত সময়ের উপর আস্থা রাখি। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সময় অনুযায়ী সাহরি ও ইফতার করা অধিক নিরাপদ।

কিন্তু পরিস্থিতির কারণে সেটা যদি পালন করা সম্ভব না হয় তখন একাধিক মাধ্যমের সাথে যাচাই করে আমরা চাইলে ২-১ মিনিট আগে পরেও ইফতার-সাহরি করতে পারি।

যেমনঃ আমাদের অ্যাপে GPS সেট করার মাধ্যমে আপনি সাহরি-ইফতারের সময় দেখতে পারেন। আপনি GPS সেট করে ৩ মিনিট সতর্কতামূলক সময় সেট করে নিলে আপনার বাড়ির সাপেক্ষে সাহরি ও ইফতারের সময় দেখতে পাবেন। সেটা হয়ত আপনার জেলার কেন্দ্রস্থলের সময়ের থেকে ২-১ মিনিট আগে পরে। এতেও ইনশাআল্লাহ আপনার রোজা শুদ্ধ হয়ে যাবে।

এছাড়াও আপনি যদি অ্যাপে প্রদর্শিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বর্তমান সময় অনুযায়ী সাহরি-ইফতার করেন তাহলেও আমরা আশা করি ভুল হবে না ইনশাআল্লাহ। কেননা এই সময়ের সাথে ৩ মিনিট সতর্কতামূলক সময় যুক্ত আছে। 

তারপরেও আপনি যদি নির্ভুল ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সময় দেখতে চান। তাহলে আপনার প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কার্যালয় থেকে প্রকাশিত ক্যালেন্ডার অনুসরণ করুন। স্থানীয় ভাবে অনেক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বা সংগঠন ক্যালেন্ডার প্রকাশ করে থাকেন। সেগুলো এড়িয়ে গিয়ে নির্ভরযোগ্য মাদরাসা বা আলেমগণের নেতৃত্বে প্রণিত ক্যালেন্ডার অনুসরণ করুন। গুগল সহ বিভিন্ন অ্যাপে আপনার জেলার সূর্যোদয়-সূর্যাস্তের সময় দেখতে পাবেন। যে কোনো ক্যালেন্ডার বা অ্যাপ এমন কি আমাদের মুসলিমস ডে অনুসরণের ক্ষেত্রেও যাচাই করে নিবেন সেটি ঠিক আছে কিনা।

অ্যাপের ইউজার হিসাবে আমাদের করণীয় কী?

অ্যাপের সেটিংস থেকে ৩ মিনিট সতর্কতামূলক সময় সেট করে GPS এর মাধ্যমে সাহরি-ইফতারের সময় নির্ধারন করতে পারেন। এটা আমাদের কাছে অধিক নিরাপদ মনে হয়। কারণ এতে আপনার বাড়ির অবস্থানের উপর ভিত্তি করে এক্সাক্ট সময় দেখাবে। আবার ৩ মিনিট সতর্কতামূলক সময় সেট করার কারণে সময়ের আগেই ইফতার করার ঝুঁকি কমে যাবে। পাশপাশি অ্যাপের সময়ের সাথে সূর্যোদয়-ফজরের শুরুর ওয়াক্ত ও সূর্যাস্তের সময় মিলে কিনা সেটাও খেয়াল রাখতে হবে।

আমাদের জানা মতে এই ওয়েবসাইটের তথ্যগুলো ঠিক আছে। এখান থেকেও আপনি সময় যাচাই করে দেখতে পারেন।

আমাদের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম

অ্যাপের বিষয়ে যে কোনো প্রয়োজনে মেসেজ করতে পারেন আমাদের ফেসবুক পেজে

অথবা ইমেইল করুন এই ঠিকানায়ঃ [email protected]

 

16 thoughts on “ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য জেলার মুসলিমস ডে অ্যাপের ইউজারদের দৃষ্টি আকর্ষণ

  1. ফরিদপুর জেলার জন্য টাইম একদম ঠিক আছে 🥰🥰

  2. আলহামদুলিল্লাহ মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করছি….

  3. আমাদের কিশোরগঞ্জের সাথে মিল আছে।

  4. আমরা যারা ইউরোপে থাকি, আমাদের সাথে আপনাদের এ্যাপের টাইম মেলে না। Summer time এ আমাদের সময় হয়ে যায় GMT+2, কিন্তু আপনাদোর এ্যাপ এখনো GMT+1 এই সময় দেখাচ্ছে। এটার একটা সমাধান আশা করছি, ধন্যবাদ।

    1. ভাই, সেটিংস থেকে Daylight Settings এ গিয়ে ১ ঘন্টা এড করে নিন। তাহলে সঠিক সময় দেখা যাবে।

  5. হিজরী তারিখ সূর্যাস্তের পর পরিবর্তন হয়। কিন্ত এই App এ তা রাত ১২ টার পরে পরিবর্তন হচ্ছে।
    এটা আপনাদের ঠিক করা উচিত।

    1. সূর্যাস্তের পরে হিজরি তারিখ পরিবর্তন হওয়ার সেটিংস অ্যাপে দেয়া আছে। আমাদের উচিত অ্যাপটি এক্সপ্লোর করে দেখা যে এখানে কী কী আছে, কী কী নাই।
      ধন্যবাদ।

    1. জ্বি হিজরি তারিখ আছে। প্রতি মাসে চাঁদ দেখা যাওয়ার পর আমরা হিজরি তারিখের ডেটাবেজ আপডেট করি।

  6. আলহামদুলিল্লাহ লক্ষ্মীপুর জেলার টাইম একদম ঠিক

  7. আলহামদুলিল্লাহ ,নাটোর জেলার সময় সূচির সঙ্গে মিল আছে

  8. আমাদের সিলেটের সাহরী ইফতারের টাইম আমাদের এলাকার মসজিদের সাথে মিলে নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.